শিরোনাম :
অবৈধভাবে বালু ভরাটে ব্যবহৃত ২,৮০০ ফুট লোহার পাইপ জব্দ করেছে ডিএসসিসি ডিএনসিসিতে ৭দিনের মশক নিধন অভিযানে ৮৯টি মামলায় ১১ লাখ টাকা জরিমানা আদায় ১১ মার্চ, স্বাস্থ্য অধিদফতরের গাড়িচালক মালেকের বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলায় চার্জ গঠন ডিজিটাল আইনের মামলা, কার্টুনিস্ট কিশোরের রিমান্ড আবেদন খারিজ হাইকোর্ট,আজিজ কো-অপারেটিভের চেয়ারম্যানের জামিন আবেদন গ্রহণ করেননি ৩০ মার্চের মধ্যে, সুইস ব্যাংকসহ বিদেশে পাচার হওয়া অর্থ ফেরাতে হাইকোর্টের রুলের জবাব দিতে হবে স্কুল কলেজ ও বিশ্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষক- কর্মচারীকে টিকা নিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল আইন হয়েছে, ডিজিটাল নিরাপত্তাও দেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী ৩০ মার্চ থেকে স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত ‘শাহবাগে সংঘর্ষে মামলায় ৭ জনকে জেলগেটে ১দিনে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি’ এখন পানির জন্য দেশে মিছিল মিটিং হয় না: এলজিআরডি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার: ‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য ডিজিটাল সংযুক্তির প্রস্তুতি সম্পন্ন’ লেখক মুশতাকের দাফন আজিমপুর কবরস্থানে ঢাকা বার নির্বাচনে সভাপতিসহ আ’লীগের ১৫. সম্পাদক বিএনপির ৮জন বিজয়ী মুজিবনগর স্বাধীনতা সড়কের কাজ মার্চে প্রথম সপ্তাহে শেষ হবে: এলজিআরডি মন্ত্রী অনুমোদনহীন স্বদেশ প্রপার্টিজ প্রকল্পের ড্রেজার মেশিন বন্ধ করেছে ডিএসসিসি হাইকোর্ট:বিমানের সাবেক ১৭ সিবিএ নেতার দুর্নীতি দুদকের নথি চেয়েছে কাউন্সিলরদের জলাবদ্ধতা নিরসনের প্রত্যয় নিয়ে কাজ করতে বললেন মেয়র তাপস ডিএসসিসির ইউসুফ আলী সরদার দুদকের জালে, ফের সম্পদের নোটিশ কেরানীগজ্ঞে ‘রুবেল গংএর’ বিরুদ্ধে দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের বাড়ি দখলের অভিযোগ
সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ১০:১১ পূর্বাহ্ন

প্যারিস চুক্তির আওতায় জলবায়ু দূষণকারীদের ঋণের পরিবর্তে অনুদান , দাবি টিআইবির

দূরবীন নিউজ প্রতিবেদক :
প্যারিস চুক্তির আওতায় জলবায়ু অর্থায়নে উন্নয়নশীল দেশের জন্য দূষণকারীদের ক্ষতি পূরণ প্রদান নীতি বিবেচনায় রেখে ঋণের পরিবর্তে উন্নয়ন সহায়তার অর্থ সরকারি অনুদান হিসেবে প্রদান নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।

বৃহতিবার (২৮ নভেম্বর) টিআইবির পক্ষ থেকে জিসিএফ ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক তহবিল থেকে প্রয়োজনীয় তহবিল অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যথাসময়ে ও সহজে সরবরাহ করা এবং ক্ষতি পূরণের অর্থ আদায়ে বাংলাদেশসহ ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর সমন্বিতভাবে উপস্থাপন ও দর কষাকষিতে প্রদর্শন করাসহ ৮ দফা দাবি জানানো হয়েছে।

ধানমন্ডিতে সংস্থাটির কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব দাবি তুলে ধরে টিআইবি। সংবাদসম্মেলনে টিআইবি কর্মকর্তাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ড. ইফতেখারুজ্জামান, নির্বাহী পরিচালক; অধ্যাপক ড. সুমাইয়া খায়ের, উপদেষ্টা-নির্বাহী ব্যবস্থাপনা; এম. জাকির হোসেন খান, সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার-ক্লাইমেট ফিন্যান্স গর্ভনেন্স এবং মো: মাহফুজুল হক, প্রোগ্রাম ম্যানেজার-ক্লাইমেট ফিন্যান্স পলিসি ইন্টেগ্রিটি।

সংবাদসম্মেলনের শুরুতে এম. জাকির হোসেন খান ও মো: মাহফুজুলহক বৈশি^ক জলবায়ু অর্থায়নেঅনিশ্চয়তা, সবুজ জলবায়ু তহবিলের চ্যালেঞ্জসমূহ, বৈশি^ক কার্বন নিঃসরণহ্রাসে বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতি এবং কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প স্থাপন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ক্ষয়-ক্ষতি এবং তা মোকাবেলায় পদক্ষেপসহ আসন্ন কপ-২৫ সম্মেলনে প্রত্যাশা তুলে ধরেন।

ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “আসন্ন কপ-২৫ সম্মেলনে প্যারিস চুক্তিতে সাক্ষরকারী দেশসমূহ তাদের অঙ্গীকারকৃত জলবায়ু অর্থায়নের পাশাপাশি ওয়ারশো ইন্টারন্যাশনাল মেকানিজমের আওতায় বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের ফলে সৃষ্ট ক্ষয়-ক্ষতি মোকাবেলায় ক্ষতিপূরণ প্রদান, ক্ষতিপূরণ প্রদানে প্রযোজ্য নীতিমালা ও কর্ম পদ্ধতিনির্ধারণ এবং তা বাস্তবায়নের পরিকল্পনা সম্পর্কে আলোচিত হবে।”

জলবায়ু অর্থায়নকে সম্পুর্ণ আলাদা উল্লেখ করে তিনি বলেন, “এই অর্থায়ন হতে হবে উন্নয়ন সহায়তার ‘অতিরিক্ত’ ও ‘নতুন’ এবং এটি ক্ষতিপূরণ হিসেবে আসতে হবে। যদিওদূষণকারী দেশসমূহ প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছে যে ২০২০ সাল থেকে প্রতি বছর তারা ১০০ বিলিয়ন ডলার অর্থায়ন করবে অথচ এক্ষেত্রে কোনো ধরণের অগ্রগতি পরিলক্ষিত হচ্ছে না।

জলবায়ুঅর্থায়নের জন্য প্রদত্ত অঙ্গীকারের বিপরীতে বিভিন্ন ধরণের দীর্ঘসূত্রিতা ও জটিলতা সৃষ্টিরপাশাপাশি অর্থ প্রাপ্তির জন্য নতুন ধরণের শর্ত যেমন বীমা ব্যবস্থা চালু করার মাধ্যমে নতুন ধরণের বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে যা অত্যন্ত উদ্বেগজনক এবং বাংলাদেশসহ স্বল্পোন্নত দেশসমূহের জন্য প্রতিশ্রুত অর্থ প্রাপ্তিকে অনিশ্চিত করছে।”

ড. জামান বলেন, “টিআইবিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের অধিপরামর্শ কার্যক্রমের ফলে বাংলাদেশ সবুজ জলবায়ু তহবিল (জিসিএফ) থেকে মাত্র ৮৫ মিলিয়ন ডলার পাওয়ার অনুমোদন পেয়েছে, যে অর্থ এখনও ছাড় করা হয়নি। জলবায়ুঅর্থায়নের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক উৎস থেকে মাত্র ৩৫০ মিলিয়ন ডলার পেয়েছে।”

ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “আন্তর্জাতিক উৎস থেকে প্রাপ্ত অর্থের পরিমাণের চেয়ে আমাদের জাতীয়ভাবে বরাদ্দ ও বিভিন্ন প্রকল্পেব্যয়কৃত অর্থের পরিমাণ বেশি যা একদিক থেকে সাধুবাদ পাওয়ার যোগ্য।

তবেএ ক্ষেত্রে আমাদের উদ্বেগের বিষয় হলো- ন্যাশনাল ডিটারমাইন্ড কন্ট্রিবিউশন অনুসারে শুধুমাত্র বাংলাদেশের অভিযোজন বাবদ বছরে যেখানে ২.৫ বিলিয়নডলার দরকার সেখানে প্রয়োজনীয় অর্থ আমরা আন্তর্জাতিক উৎস থেকে পাচ্ছিনা। পাশাপাশি, অর্থায়ন বিরোধী একটি আন্তর্জাতিক চক্রান্ত পরিলক্ষিত হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রপ্যারিস চুক্তি থেকে নিজেদেরকে প্রত্যাহার করে নিয়েছে যা অন্যান্য দেশসমূহে জলবায়ু অর্থায়নের ক্ষেত্রে ভুল বার্তা প্রদান করছে। এছাড়া, জিসিএফ নির্ধারিত কঠিন মানদণ্ড নিশ্চিত করে ক্ষতিগ্রস্ত দেশসমূহ প্রয়োজনীয় তহবিল সংগ্রহ করতে সক্ষম না হওয়ার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক অর্থ লগ্নিকারী প্রতিষ্ঠান ক্রমেই জিসিএফএ নিবন্ধিত হচ্ছে।

এমন প্রতিষ্ঠানগুলো জলবায়ু তহবিলকে লাভজনক বিনিয়োগ বা ব্যবসার সুযোগ হিসাবে ব্যবহার করছে যা অনৈতিক এবং আন্তর্জাতিক প্রতিশ্রুতির লংঘন।

এছাড়া দুর্নীতির সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ এবং শুদ্ধাচারের ঘাটতি রয়েছে এমন প্রতিষ্ঠানকে জিসিএফ এর প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান (Accredited Entities-AEs) হিসেবে নিবন্ধিত করা হয়েছে।”

এ বিষয়গুলোর বিশ্লেষণকরে তিনি কপ২৫ সম্মেলনে বাংলাদেশ সরকারের প্রতিনিধি দলকে বাংলাদেশের মত ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর সাথে যৌথ ও এককভাবে ডিপ্লোমেসিরমাধ্যমে সম্মেলনে উপস্থাপনের অনুরোধ করেন।

ড. জামান আরো বলেন, “জিসিএফ-এর স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিয়েব্যাপক প্রশ্ন রয়েছে। বিভিন্নপ্রকল্পে জিসিএফ কর্তৃক অর্থ প্রদানের পদ্ধতিসমূহ বাংলাদেশের মত ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর জন্য প্রতিবন্ধকতাস্বরূপ। এছাড়া জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট ক্ষয়-ক্ষতি বাবদ ক্ষতিপূরণ প্রদানের জন্য কোনো নির্দেশনা বা তহবিল এখনও গঠিত হয়নি।”

প্যারিস চুক্তি আওতায় জলবায়ু পরিবর্তনে বাংলাদেশ প্রদত্ত অঙ্গীকার এবং কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়নে বাংলাদেশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্নের সম্মুখীন হওয়ার ঝুঁকির কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, “জাতীয় স্বার্থ সুরক্ষার জন্য আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে জলবায়ু অর্থায়নের ব্যাপারে যারা অঙ্গীকার করেছেন তাদের ব্যর্থতার বিষয়গুলো সরকারকে সোচ্চারভাবে তুলে ধরতে হবে। #


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অনুসন্ধান

করোনা আপডেট

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
১১৩,৭৪৭,০১৮
সুস্থ
৬৪,৩৩৫,৬৭১
মৃত্যু
২,৫২৫,০৫৮

.