শিরোনাম :
আফগান পরিস্থিতির জন্য আমেরিকা দায়ী,তালেবানরা সাধারণ মানুষের মতোই : ইমরান খান সারাদেশে একদিনে ১৯৪ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি সারাদেশে করোনায় আরো ২৩৯ জনের মৃত্যু ডিএনসিসির মেয়রের পক্ষ থেকে ১৫ শত কর্মহীন পরিবহণ শ্রমিকে ত্রাণসামগ্রী প্রদান অসম্মান ও গ্লানির উত্তরণ ঘটিয়ে রাজস্ব বিভাগ এখন প্রশংসা পাচ্ছেঃ মেয়র শেখ তাপস প্রকল্প বাস্তবায়নে কোনো ধরনের অজুহাত মেনে নেয়া হবে না : শিল্পমন্ত্রী চীন-তালেবান সুসম্পর্ক তৈরি হচ্ছে, পাল্টে যাবে আফগানিস্তানের রাজনীতি বিএনপির আ’ লীগ সরকারের বিরুদ্ধে অনবরত মিথ্যাচার করছে : ওবায়দুল কাদের চট্টগ্রামে নিরপরাধ মিনুর জেল খাটা মামলার প্রকৃত আসামি কুলসুম গ্রেফতার করোনা পরিস্থিতিতে যাতে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়ায় কারো মৃত্যু না হয়: মেয়র আতিকুল ইসলাম চীন সফরে গেলেন তালেবান প্রতিনিধি দল বিএনপির আমলে শিক্ষাঙ্গনে সন্ত্রাস ছিল : ড. হাছান মাহমুদ আ’ লীগ সরকার কোভিডকে পূঁজি করে রাস্ট্রের সম্পদ লুটপাট করছে : মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সারাদেশে করোনায় আরো ২৩৭ জনের মৃত্যু ডেঙ্গু প্রতিরোধে প্রতি শনিবার সকালে ১০মিনিট নগরবাসীকে ঘর-বাড়ি পরিষ্কারের অভিযান চালানোর আহবান মেয়র আতিকের এডিস নিয়ন্ত্রণে ঢাকা দক্ষিণ সিটির ১০ ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৩ লাখ ৩১ হাজার টাকা জরিমানা নগরবাসীর কাছে এডিসের লার্ভার উৎপত্তিস্থলের তথ্য চেয়েছেন মেয়র শেখ তাপস তালেবানরা সামরিক হেলিকপ্টার ভূপাতিত করেছে! জেলেদের মুখে হাসি মেঘনায় ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ আজ বুধবার থেকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকে ভর্তির আবেদন শুরু
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১০:৪১ অপরাহ্ন

বাবরি মসজিদের জায়গায় মন্দির ? প্রশ্ন ভারতের সাবেক বিচারপতির

দূরবীন নিউজ ডেস্ক :
ভারতের সুপ্রিমকোর্ট বাবরি মসজিদ-রাম জন্মভূমি নিয়ে করা ঐতিহাসিক অযোধ্যা মামলার রায় শনিবার ঘোষণা করেছেন ।
রায়ে বাবরি মসজিদের জমি মন্দির নির্মাণে হিন্দুদের দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আর নতুন একটি মসজিদ নির্মাণে মুসলমান সম্প্রদায়কে শহরেই আলাদা পাঁচ একরের জমি বরাদ্দ দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। খবর বিভিন্ন গণমাধ্যমের।

এদিকে সুপ্রিম কোর্টের এ রায় নিয়ে আনন্দবাজার পত্রিকায় মন্তব্য কলাম লিখেছেন ভারতের সাবেক বিচারপতি অশোককুমার গঙ্গোপাধ্যায়।

তিনি বলেছেন, ‘এই রায়টা কিসের ভিত্তিতে দেয়া হল, সবটা ঠিক বুঝতে পারছি না। সুপ্রিম কোর্ট দেশের সর্বোচ্চ আদালত। সেই আদালত একটা রায় দিলে তাকে মেনে নেয়া ছাড়া উপায় নেই। কিন্তু অনেকগুলো প্রশ্নের উত্তর আমি খুঁজে পাচ্ছি না।

বিচারপতি লিখেছেন, ১৫২৮ সালের আগে ওখানে রাম মন্দির ছিল কি না, আমরা কেউ কি নিশ্চিত ভাবে জানি? রাম মন্দির ভেঙেই বাবরি মসজিদ তৈরি করা হয়েছিল, এমন কোনও অকাট্য প্রমাণ কি কেউ দাখিল করতে পেরেছিলেন? পারেননি। তা সত্ত্বেও যে নির্দেশটা শীর্ষ আদালত থেকে এল, তা নিয়ে প্রশ্ন থাকা স্বাভাবিক নয় কি?’
এছাড়া চারশো-পাঁচশো বছর ধরে একটা মসজিদ একটা জায়গায় দাঁড়িয়ে ছিল। সেই মসজিদকে আজ থেকে ২৭ বছর আগে ভেঙে দেয়া হল বর্বরদের মতো আক্রমণ চালিয়ে। আর আজ দেশের সর্বোচ্চ আদালত বলল, ওখানে এ বার মন্দির হবে।

সাংবিধানিক নৈতিকতা বলে তো একটা বিষয় রয়েছে! এমন কোনও কাজ করা উচিত নয়, যাতে দেশের সংবিধানের উপর থেকে কারও ভরসা উঠে যায়। আজ অযোধ্যার ক্ষেত্রে যে রায় হল, সেই রায়কে হাতিয়ার করে ভবিষ্যতে এই রকম কাণ্ড আরও ঘটানো হবে না, সে নিশ্চয়তা কেউ দিতে পারবেন?

শুধু অযোধ্যায় নয়, মথুরা এবং কাশীতেও একই ঘটনা ঘটবে— এ কথা আগেই বলা হত। যাঁরা গুন্ডামি করে বাবরি মসজিদ ভেঙেছিলেন, তাঁরাই বলতেন। এখন আবার সেই কথা বলা শুরু হচ্ছে।

যদি সত্যিই মথুরা বা কাশীতে কোনও অঘটন ঘটানো হয় এবং তার পরে মামলা-মোকদ্দমা শুরু হয়, তা হলে কী হবে? সেখানেও তো এই রায়কেই তুলে ধরে দাবি করা হবে যে, মন্দিরের পক্ষেই রায় দিতে হবে বা বিশ্বাসের পক্ষেই রায় দিতে হবে।

অযোধ্যা মামলা এর আগেও সুপ্রিম কোর্টে উঠেছে। তখনই আদালত স্বীকার করে নিয়েছিল যে, বিতর্কিত জমিতে মসজিদ ছিল। যেখানে বছরের পর বছর ধরে নামাজ পড়া হচ্ছে, সেই স্থানকে মসজিদ হিসেবে মান্যতা দেওয়া উচিত, এ কথা আদালত মেনে নিয়েছিল।

তা হলে আজ এই নির্দেশ এল কী ভাবে? যেখানে একটা মসজিদ ছিল বলে সুপ্রিম কোর্ট নিজেই মেনেছে, সেখানে আজ মন্দির বানানোর নির্দেশ সেই সুপ্রিম কোর্টই দিচ্ছে কোন যুক্তিতে?

ভারতীয় পুরাতাত্ত্বিক সর্বেক্ষণ (এএসআই) জানিয়েছিল, ওই মসজিদের তলায় একটি প্রাচীনতর কাঠামোর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। কিন্তু সেই প্রাচীনতর কাঠামো যে মন্দিরই ছিল, এমন কোনও প্রমাণ তো মেলেনি। সুপ্রিম কোর্ট নিজেও মেনে নিয়েছে যে, পুরাতাত্ত্বিক সর্বেক্ষণের রিপোর্টে কোনও ভাবেই প্রমাণ হচ্ছে না যে, একটা মন্দিরকে ভেঙে ওখানে মসজিদ তৈরি করা হয়েছিল।

তা হলে কিসের ভিত্তিতে আজ মন্দির তৈরির নির্দেশ? বিশ্বাসের ভিত্তিতে। দেশের সর্বোচ্চ আদালত বলল, অনেক হিন্দুর বিশ্বাস যে, ওখানে রামের জন্ম হয়েছিল।

বিশ্বাস বা আস্থার মর্যাদা রাখতে ওই বিতর্কিত জমি রামলালা বিরাজমানের নামে দিয়ে দেওয়া হল। এটা কি আদৌ যুক্তিযুক্ত হল? রামচন্দ্র আদৌ ছিলেন কি না, কোথায় জন্মে ছিলেন, সে সবের কোনও প্রামাণ্য নথি কি রয়েছে? নেই।

রাম শুধু মহাকাব্যে রয়েছেন। সেই সূত্রে অনেক মানুষের মনে একটা বিশ্বাসও রয়েছে। কিন্তু সেই বিশ্বাসের বলে একটা মসজিদের জমি মন্দিরের নামে হয়ে যেতে পারে না।

কালকে যদি আমি বলি, আপনার বাড়ির নীচে আমার একটা বাড়ি রয়েছে, এটা আমার বিশ্বাস, তা হলে কি আপনার বাড়িটা ভেঙে জমিটা আমাকে দিয়ে দেওয়া হবে?

ইতিহাসের পুনর্নির্মাণ করা তো আদালতের কাজ নয়। আদালত সিদ্ধান্তে পৌঁছয় অকাট্য প্রমাণ এবং প্রামাণ্য নথিপত্রের ভিত্তিতে।

বাবরি মসজিদ যেখানে ছিল, সেই জমিতে মন্দির তৈরির নির্দেশ সুপ্রিম কোর্ট কোন অকাট্য প্রমাণ ও প্রামাণ্য নথির ভিত্তিতে দিল, সেটা বুঝতে আমার অসুবিধা হয়েছে।

বাবরি মসজিদ যে ওখানে ছিল, পাঁচ শতাব্দী ধরে ছিল, সে আমরা সবাই জানি। বাবরি মসজিদ যে গুন্ডামি করে ভেঙে দেওয়া হল, সেটাও আমরা দেখেছি।

এমনকি সুপ্রিম কোর্ট এ দিনের রায়েও মেনে নিয়েছে যে, অন্যায় ভাবে মসজিদটা ভেঙে দেওয়া হয়েছিল।#


আপনার মতামত লিখুন :

Deprecated: Theme without comments.php is deprecated since version 3.0.0 with no alternative available. Please include a comments.php template in your theme. in /home/courentn/public_html/wp-includes/functions.php on line 5061

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অনুসন্ধান

করোনা আপডেট

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১,২২৬,২৫৩
সুস্থ
১,০৫০,২২০
মৃত্যু
২০,২৫৫
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
১৯৫,৭০৪,১১৪
সুস্থ
১২৮,৭০২,৯২১
মৃত্যু
৪,১৮৪,৭৫২

.