সর্বশেষঃ
কোটা সংস্কার আন্দোলনে হত্যা ও অন্যান্য ঘটনা বিচার বিভাগীয় তদন্ত হবে : প্রধানমন্ত্রী শিক্ষার্থীদের ওপর সহিংসতা চান না মুশফিকুর ঢাবিতে গায়েবানা জানাজার আন্দোলনকারীদের কফিন মিছিলে পুলিশের কাঁদানে গ্যাস সংঘবদ্ধ ভূমিদস্যুদের কবল থেকে খাল পুনরুদ্ধার হবে: মেয়র তাপস সিটি করপোরেশন  ও শহরের  সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ পবিত্র আশুরা উপলক্ষে ঢাকায় তাজিয়া মিছিল কোটা আন্দোলনে ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান হবে : ডিবি প্রধান  আজ পবিত্র আশুরা আজ ঢাকায় কোটা আন্দোলনকারীদের কর্মসূচি আন্দোলনকারীদের শিক্ষার্থীদে ওপর ছাত্রলীগের হামলার তীব্র নিন্দা সাদা দলের শিক্ষকদের
শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০৮:২১ পূর্বাহ্ন

প্রভাবশালীরা নগরীর সরকারি খাল ও খেলার মাঠ দখল করছে: ডিএনসিসির মেয়র

দূরবীণ নিউজ প্রতিবেদক:
ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, প্রভাবশালীরা সরকারি খাল ও খেলারমাঠ দখল করছে। আমাদের প্রথমে বুঝতে হবে জনগণ কি চায়? জনগণ খাল চায়, নৌ পথ , খালে মাছ চাষ , খালের দুপাশে হাঁটার রাস্তা এবং সাইকেল লেন। গুলশান, বনানী এবং বারিধারাতে ইউনিসেফ এর মাধ্যমে একটি সার্ভে পরিচালনা করে আমরা দেখতে পেয়েছিলাম, বারিধারার শতকরা ৯০ ভাগ আবাসিক ভবনের পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থার কোন পরিকল্পনা নাই, ফলে সে সকল ভবনের সকল ময়লা পানি খালে এসে পড়ছে। এটা অনেক দুঃখের বিষয় যে, আমাদের শহরে অনেক নাগরিক থাকলেও সুনাগরিকের বড়ই অভাব।

ডিএনসিসির মেয়র বলেন,ডিএনসিসিতে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচী অব্যাহত আছে, যার প্রতিফলন সকলেই দেখতে পাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী কখনই খেলার মাঠ বা উন্মুক্ত স্থানে আবাসন করার অনুমতি দেন না। তিনি বলেন, কালশী ফ্লাইওভার উদ্বোধনের সময় সুস্পষ্টভাবে বলে দেন যে, বালুর মাঠে কোন আবাসন প্রকল্প হবে না, এখানে খেলার মাঠ বানানো হবে। কিন্তু দুঃখের বিষয়, এর কোন ফলাফল আসেনি। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রীকে এ বিষয়ে জানানো হলে, তিনি কঠোর হস্তে তা দমন করেছেন। একইভাবে ফার্মগেটের খেলার মাঠ এখন মেট্রো নির্মাণ প্রকল্পের অস্থায়ী অফিস হিসেবে ব্যবহৃত হলেও, এ স্থানে মাল্টিপারপাস শপিং কমপ্লেক্স বানানোর জন্য প্রকল্প প্রস্তাবণা দেয়া হয়েছে। এমতাবস্থায়, এ স্থান কে খেলার মাঠ হিসেবে সংরক্ষণ করার জন্য তিনি ঢাকার প্রত্যেক নাগরিককে নিজ নিজ জায়গা প্রতিবাদ জানানো এবং এগিয়ে আসার জন্য উদাত্ত আহŸান জানিয়ে তাঁর বক্তব্য শেষ করেন।

বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) বিশ্ব নগর পরিকল্পনা দিবস ২০২৩ ‍উদযাপনের অংশ হিসেবে এবারের প্রতিপাদ্য ‘লার্ন গেøাবালী,অ্যাপলাই লোকালী’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডিএনসিসির মেয়র এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্স (বিআইপি) উদ্যোগে সংগঠনের কনফারেন্স হলে ‘ইউএন-হ্যাবিটেট ও নগর উন্নয়ন সাংবাদিক ফোরামের সহেযোগিতায় অনুষ্ঠিত সেমিনারে বিআইপি সভাপতি পরিকল্পনাবিদ মোহাম্মদ ফজলে রেজা সুমন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী ওয়াছি উদ্দিন,রাজউকের চেয়ারম্যান মো.আনিছুর রহমান মিঞা, পিএএ । বিআইপি’র সাধারণ সম্পাদক পরিকল্পনাবিদ শেখ মুহম্মদ মেহেদী আহসানের সঞ্চালনায় সেমিনারে একাধিক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন যথাক্রমে পরিকল্পনাবিদ মো. আনিসুর রহমান, পরিকল্পনাবিদ রিদমা কুদ্দুস, পরিকল্পনাবিদ রিফাহ্ মাশিয়াত জেন এবং ইউএন-হ্যাবিটেট বাংলাদেশ এর রিজিওনাল অফিস ফর এশিয়া এন্ড দ্য প্যাসিফিক এর কারিগরী উপদেষ্টা প্রিয়াঙ্কা কোচার।

স্বাগত বক্তব্যে নগর সাংবাদিক উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি অমিতোষ পাল। দেশের ঢাকা, খুলনা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী এবং পাবনা শহর নিয়ে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে নগর পরিকল্পনা ও টেকসই উন্নয়ন বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা এবং জাতীয় সেমিনার আয়োজন অন্তর্ভূক্ত আছে।
নগর সাংবাদিক উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি অমিতোষ পাল বলেন, আমরা বৈশ্বিক ভাবে যা শিক্ষা গ্রহণ করেছি, সেখানে আমাদের জানার কোন ঘাটতি নেই, ঘাটতি রয়ে গিয়েছে আমাদের প্রয়োগে। তিনি আরও বলেন, সকল কর্তৃপক্ষই জানেন ঢাকা শহরকে সুন্দর করতে কি কি করতে হবে, তবে আমাদের প্রয়োগ করতে গিয়ে যেসব বাঁধার সম্মুখীন হতে হয়, এর থেকে উতরানোর পন্থা আমাদের খুঁজে বের করতে হবে। ঢাকা শহরে গনপরিবহনের গড় গতি ঘণ্টায় ৬ কিলোমিটারেরও কম বলে জানা যায়, তবে আমরা এখন মেট্রো রেলের কল্যাণে ৩২ মিনিটে উত্তরা থেকে মতিঝিল অফিসে যাচ্ছি, পদ্মা সেতুর কল্যাণে সল্প সময়ে বাড়িতে যেতে পারছি, এগুলো সম্ভব হয়েছে কেবলমাত্র পরিকল্পনার যথাযথ প্রয়োগের কারণেই।

গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী ওয়াছি উদ্দিন বলেন, অনেক ধরনের আভ্যন্তরীণ সমস্যা থাকলেও প্রশাসনিক ক্যাডার সার্ভিসে যুগ্ম সচিব পদে কর্মরতে একজন নগর পরিকল্পনাবিদের নাম প্রস্তাব করে নগর উন্নয়ন অধিদপ্তরের পরিচালক পদে নিয়োগ প্রদান করার জন্য ইতোমধ্যে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় থেকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে। একইসাথে, নিয়োগের যে বিষয়টি রয়েছে সেটাও ক্রমান্বয়ে সম্পন্ন করা হবে বলে তিনি উপস্থিত সকলতে অবহিত করেন। তিনি বলেন, আজকের সেমিনারে উপস্থাপিত প্রত্যেকটি উপস্থাপনাই চমৎকারভাবে আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে অনেক বাস্তবতা দেখিয়ে দিয়েছে। ঢাকা শহরের খাল সমূহ পুনরুদ্ধারে দুই সিটি কর্পোরেশনের সকল প্রকল্পই ইতোমধ্যে একনেক এর সভায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিয়েছেন। এখন কারও তোয়াক্কা না করে নির্ভীকভাবে এ প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করা গেলেই ঢাকা সকল খাল পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হবে বলে তিনি মন্তব্য করে তাঁর বক্তব্য শেষ করেন।

রাজউকের চেয়ারম্যান মো. আনিসুর রহমান মিঞা বলেন, ১৬১০ সালে ঢাকা শহর প্রতিষ্ঠা পেলেও ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্যদিয়ে একটি স্বাধীন দেশের রাজধানী হিসেবে ঢাকা শহরের যাত্রা শুরু হয়। বিভিন্ন সময়ে ঢাকা শহরের জন্য বিভিন্ন পরিকল্পনা করা হলেও সর্বশেষ বিশদ অ ল পরিকল্পনায় (২০২২-২০৩৫) এ বিশদভাবে এ শহরের পরিকল্পনা করা হয়। বিশ্বের বিভিন্ন শহরে সঠিক পরিকল্পনার অভাবে কি ধরনের ক্ষয়-ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে এবং সেখান থেকে শিক্ষা নিয়ে আমরা আমাদের শহরকে কিভাবে রক্ষা করতে পারি। ইতোমধ্যে মেট্রোরেলের যাত্রার মাধ্যমে রাজধানী ঢাকা যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের যে সূচনা হয়েছে ২০২৮ সাল নাগাদ তা পরিপূর্ণ রূপ পাবে বলে আমরা বিশ্বাস করি। একইসাথে, ঢাকার কেরাণীগঞ্জে শেখ হাসিনা পার্ক উন্নয়নের জন্য প্রায় ১৫০০ একর জমি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে, যেখানে জলাধার এবং ধলেশ্বরীর শাখা নদী থাকবে, বসিলায় শেখ রাসেল পার্ক নির্মাণের জন্য প্রকল্প প্রস্তাবণা দেয়া হয়েছে। এভাবে নতুন শহর পূর্বাচলে ৪৩ কি.মি. হ্রদ আছে যার উভয়পার্শ্বে হাঁটার রাস্তা এবং সাইকেল লেন দিয়ে বাঁধ করা হয়েছে।
এছাড়াও পূর্বাচল এলাকায় প্রায় ৪৫০ বিঘা এলাকা জুড়ে একটি বনায়ন করা আছে, যেটা রক্ষণাবেক্ষণে রাজউক বদ্ধ পরিকর এবং এ উদ্যোগে বন বিভাগের সাথে একটি চুক্তি সম্পাদিত হয়েছে। তিনি বলেন, কনস্ট্রাকশন রেজিলিয়েন্স এর ব্যাপারে বহু বাধা-বিপত্তি সত্তে¡ও ইলেক্ট্রনিক পারমিটিং সিস্টেম প্রণয়নের কাজ সম্পন্ন হয়েছে এবং অদ্য ১৮ নভেম্বর তারিখ থেকে তা কার্যকর হচ্ছে।

বিআইপি সভাপতি মোহাম্মদ ফজলে রেজা সুমন বলেন, বাংলাদেশে ১৯৫৯ সাল থেকে যত ধরনের পরিকল্পনা করা হচ্ছে তা সঠিকভাবে হলেও তার প্রয়োগ সঠিক ভাবে হচ্ছে না। সারা বাংলাদেশে ৮০ ভাগ নগরায়নের যেই লক্ষ্য করা হয়েছে, সেজন্য সরকারের সকল প্রকল্পকে অবশ্যই পরিকল্পনার কাঠামোর আওতায় আনতে হবে, লিগ্যাল ফ্রেমওয়ার্ক থাকতে হবে, এবং এই সকল তথ্য আমরা সুগঠিত ভাবে বাংলাদেশের জন্য একটি স্থানিক পরিকল্পনা কাঠামোর মাধ্যমে প্রস্তাব করেছি।

বিভিন্ন পরিকল্পনা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যেমে যথাযথ রিভিউ ও একাধিক পরামর্শ কর্মশালার মাধ্যমে চূড়ান্ত করা হয়েছে। আমাদের সারাদেশে সবগুলো উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ মাস্টার প্ল্যান প্রস্তুত ও প্রণয়ন করা হয়েছে। খুলনা, বরিশালের মত শহরগুলো পানিতে ডুবে যাচ্ছে। বর্তমানে পরিকল্পনাবিদদের জন্য ৩২৭ টি পোস্ট থাকলেও ১০০ জন পরিকল্পনাবিদও নেই বর্তমানে। আমাদের প্রথম প বার্ষিকী পরিকল্পনায় প্ল্যানিং ফ্রেমওয়ার্কের কথা বলা থাকলেও আজ অষ্টম প বার্ষিকী পরিকল্পনায়ও প্রয়োগ করা হয়নি। # কাশেম

 

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


অনুসন্ধান

নামাজের সময়সূচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৫৭ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০৮ অপরাহ্ণ
  • ৪:৪৩ অপরাহ্ণ
  • ৬:৫৩ অপরাহ্ণ
  • ৮:১৭ অপরাহ্ণ
  • ৫:১৯ পূর্বাহ্ণ

অনলাইন জরিপ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপি এখন লিপসার্ভিসের দলে পরিণত হয়েছে।’ আপনিও কি তাই মনে করেন? Live

  • হ্যাঁ
    25% 3 / 12
  • না
    75% 9 / 12