সর্বশেষঃ
এসবিএসি ব্যাংকের সাবেক এমডি রফিকুলসহ ৯ জনকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ মামলার পর সরকারি কর্মচারীদের গ্রেফতারে অনুমতির বিধান কেন অবৈধ নয় জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট রাজধানীসহ সারাদেশে একদিনে আরো ২৪২ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি পরীর পাহাড় নিয়ে সংশ্লিষ্ট সকলকে ধৈর্য ধারন করার আহবান আইনমন্ত্রীর শুদ্ধাচার পুরস্কার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মস্পৃহাকে বৃদ্ধি করবেঃ মেয়র আতিকুল ইসলাম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ব নেতাদের বিশেষ আমন্ত্রণেই জাতিসঙ্ঘে গেছেন : তথ্যমন্ত্রী লাকসাম- কুমিল্লা সেকশনে ২৪ কিলোমিটারে ডাবল লাইনের ট্রেন উদ্বোধন করলেন রেলপথ মন্ত্রী করোনাকালে শিক্ষা ব্যবস্থা বিপর্যয় ভাবনার বিষয় : বিচারপতি মীর হাসমত আলী ২০ হাজার টাকা জাতীয় ন্যুনতম মজুরি নির্ধারণের দাবী টিইউসির সবার আন্তরিক প্রচেষ্টার ফলেই ঢাকা উত্তর সিটিতে ডেঙ্গু পরিস্থিতি এখনও নিয়ন্ত্রণে : মেয়র আতিকুল ইসলাম
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৩৯ পূর্বাহ্ন

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নথি জালিয়াতি মামলা দুদককে তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের

ফাইল ছবি

দূরবীণ নিউজ প্রতিবেদক:
হাইকোর্ট আলোচিত প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নথি জালিয়াতির মামলার আসামি গণভবনের কর্মকর্তা নাজিম উদ্দিনকে জামিন দেননি। আদালত একই সঙ্গে নথি জালিয়াতির মামলাটি তদন্ত করতে দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) নির্দেশ দিয়েছেন।

সোমবার (১৮ জানুয়ারি) হাইকোর্টের বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেনের নেতৃত্বাধীন একটি দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। সংশ্লিষ্ট কোর্টের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ডক্টর বশির উল্লাহ গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

জানা যায়, এই জালিয়াতির এ ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিচালক-৭ মোহাম্মদ রফিকুল আলম বাদী হয়ে গত ৫ মে তরিকুল, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অফিস সহকারী ফাতেমা ও ফরহাদ নামে তিন জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। এরপর বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করে পুলিশ।

এই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের পরিদর্শক মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতা তরিকুল ইসলাম মমিনসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে (চার্জশিটে) অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

চার্জশিটে অভিযুক্ত ৬ আসামিরা হলেন- ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি (বহিষ্কৃত) তরিকুল ইসলাম মমিন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মচারী ফাতেমা খাতুন, নাজিম উদ্দীন, রুবেল, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ফরহাদ হোসেন ও বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের সাবেক কোষাধ্যক্ষ এয়ার কমোডর (অব.) এম আব্দুস সালাম আজাদ। এদের মধ্যে পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এয়ার কমোডর (অব.) এম আব্দুস সালাম আজাদ পলাতক রয়েছেন।

পুলিশের অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে কোষাধ্যক্ষ পদে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এম এনামুল হক, বুয়েটের প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক মো. আব্দুর রউফ এবং বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের সাবেক কোষাধ্যক্ষ এয়ার কমোডর (অব.) এম আবদুস সালাম আজাদের নাম প্রস্তাব করে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে একটি সারসংক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়।

এই নথি প্রধানমন্ত্রীর সামনে উপস্থাপন করার পর তিনি অধ্যাপক ড. এম এনামুল হকের নামের পাশে টিক চিহ্ন দেন। পরে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য নথিটি রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানোর প্রস্তুতি পর্বে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অফিস সহকারী ফাতেমার কাছে ফাইল এলে তিনি এম আবদুস সালাম আজাদ অনুমোদন পাননি, গোপনীয় এ তথ্য ফোনে ছাত্রলীগ নেতা তরিকুলকে জানিয়ে দেন।

এরপর তরিকুলের পরিকল্পনা অনুযায়ী, ২০২০ সালের ১ মার্চ নথিটি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে কৌশলে বের করে ৪ নম্বর গেটের সামনে আসামি ফরহাদের হাতে তুলে দেন। এ কাজের জন্য ফাতেমাকে আসামিরা ১০ হাজার করে বিকাশে মোট ২০ হাজার টাকা দেয়।

অভিযোগপত্রে আরও বলা হয়, এরপরেই সেই নথিতে আসামিরা পরস্পরের যোগসাজশে ড. এম এনামুল হকের নামের পাশে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া টিক চিহ্নটি ‘টেম্পারিং’ করে সেখানে ক্রস চিহ্ন দেয়। একইভাবে অধ্যাপক মো. আব্দুর রউফের নামের পাশেও ক্রস চিহ্ন দিয়ে এয়ার কমোডর এম আবদুস সালাম আজাদের নামের পাশে টিক চিহ্ন দেয়।

পরে আসামিরা গত ৩ মার্চ তারিখে নথিটি রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য পাঠায়। এসব ঘটনা নিয়ে ভাটারা এলাকার সানফ্লাওয়ার রেস্টুরেন্টে আসামি নাজিমের সঙ্গে তরিকুল ও ফরহাদ পরামর্শ করে। তবে তাদের জালিয়াতিটি ধরা পড়ে যায়।/


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অনুসন্ধান

নামাজের সময়সূচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৪:৩৬ পূর্বাহ্ণ
  • ১১:৫৩ পূর্বাহ্ণ
  • ৪:১১ অপরাহ্ণ
  • ৫:৫৬ অপরাহ্ণ
  • ৭:০৯ অপরাহ্ণ
  • ৫:৪৭ পূর্বাহ্ণ

অনলাইন জরিপ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপি এখন লিপসার্ভিসের দলে পরিণত হয়েছে।’ আপনিও কি তাই মনে করেন? Live

  • হ্যাঁ
    20% 1 / 5
  • না
    80% 4 / 5