সর্বশেষঃ
দুর্নীতির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ডিসিদের নির্দেশনা দুদক চেয়ারম্যানের ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে বেওয়ারিশ কুকুর নিয়ন্ত্রণে বন্ধ্যাত্ত্ব করণ কার্যক্রম শুরু ডিএনসিসির অধুনিকায়নে সহায়তার আশ্বাস ফ্লোরিডার মিয়ামি ডেড কাউন্টির মেয়রের রাজউকে চাকরি -আলাদীনের চেরাগ, জাফরের ৮ তলা ভবনসহ অঢেল সম্পদ: দুদকের অভিযান আলেশা মার্ট চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা যুক্তরাষ্ট্রে সিনহার বাড়ি: ৬ এপ্রিল দুদকের প্রতিবেদন চেয়েছে আদালত জাতীয় সংসদে শীর্ষ ২০ ঋণখেলাপির তালিকা প্রকাশ অর্থমন্ত্রীর অভিভাবকের বিকল্প মায়ের নাম নির্দেশনাসহ হাইকোর্টের রায় স্বাস্থ্যের ডিজি’র নিঃশত ক্ষমা প্রার্থনা,স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতি অসহনীয় পর্যায়ে : হাইকোর্ট ফ্লোরিডায় বাংলাদেশ কনস্যুল জেনারেল অফিসে প্রবাসী বাঙালিদের সাথে ডিএনসিসি মেয়রের মতবিনিময়
সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০৪:২২ পূর্বাহ্ন

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে বিদেশে বাড়ি গাড়ির মালিকদের তথ্য চেয়েছে দুদক

ফাইল ছবি

দূরবীণ নিউজ প্রতিবেদক:
কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, মালয়েশিয়া ও সিঙ্গাপুরসহ বিভিন্ন দেশে অর্থপাচার, বিদেশে বিলাসবহুল বাড়ি বা ফ্ল্যাট ও গাড়ির মালিক বাংলাদেশি নাগরিকদের নাম পরিচয়সহ তথ্য চেয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

জানা গেছে, গত ১১ জানুয়ারি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাসুদ বিন মোমেনের কাছে দুদকের মানি লন্ডারিং বিভাগের মহাপরিচালক আ ন ম আল ফিরোজের পাঠানো ওই চিঠিতে জরুরি ভিত্তিতে এ তথ্য চেয়েছে দুদক।

দুদকের চিঠিতে বলা হয়, বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদে অর্থ পাচারের মাধ্যমে বিদেশে বিলাসবহুল ফ্ল্যাট বা বাড়ি কেনার খবরের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের এক সুয়োমোটো রুলে (নং ২২/২০২০) দুদককে অন্যতম রেসপন্ডেন্ট করা হয়েছে এবং অর্থ পাচারকারীদের নাম, ঠিকানা, পরিচয় এবং তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার সর্বশেষ অবস্থা জানানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

অর্থ পাচারকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে বিদেশে বাড়ি বা ফ্ল্যাট কিনেছেন এমন বাংলাদেশি নাগরিকদের তালিকা পর্যালোচনা করা একান্ত প্রয়োজন।
এর আগে গত বছরের ২২ অক্টোবর বিভিন্ন দেশে পাচারকৃত অর্থ বিনিয়োগের মাধ্যমে নাগরিকত্ব গ্রহণকারী বাংলাদেশিদের তালিকা চেয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আরেকটি চিঠি পাঠিয়েছিল দুদক।

সম্প্রতি ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) আয়োজিত মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, রাজনীতিবিদেরা নন, বিদেশে বেশি অর্থ পাচার করেন সরকারি চাকুরেরা।

গোপনে কানাডার টরেন্টোতে অবস্থিত বাংলাদেশিদের বিষয়ে খোঁজ নেওয়া হয়েছে। আমার ধারণা ছিল, রাজনীতিবিদদের সংখ্যা বেশি হবে, কিন্তু আমার কাছে যে তথ্য এসেছে, যদিও এটি সামগ্রিক তথ্য নয়, সেটিতে আমি অবাক হয়েছি। সংখ্যার দিক থেকে আমাদের অনেক সরকারি কর্মচারীর বাড়িঘর সেখানে বেশি আছে এবং তাদের ছেলে-মেয়েরা সেখানে থাকে।

মন্ত্রী বলেন, আমার কাছে ২৮টি কেস এসেছে এবং এর মধ্যে রাজনীতিবিদ হলেন চারজন। এছাড়া কিছু আছেন আমাদের তৈরি পোশাকশিল্পের ব্যবসায়ী। আমরা আরও তথ্য সংগ্রহ করছি। পাচারে শুধু কানাডা নয়, মালয়েশিয়াতেও একই অবস্থা। তবে তথ্য পাওয়া খুব কঠিন। বিভিন্ন মিডিয়ায় যে তথ্য বের হয়, হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার হচ্ছে, আসলে সংখ্যাটি তত নয়। পাচারের দায় বিদেশি সরকারও এড়াতে পারে না উল্লেখ করে আব্দুল মোমেন বলেন, যেমন সুইজারল্যান্ডের ব্যাংকে টাকা রাখলেন, সেই তথ্য আমাদের দেয় না। তারা ট্রান্সপারেন্সির কথা বলে, কিন্তু যদি বলি কার কার টাকা আছে, সেই তথ্য দাও, তখন তারা দেয় না।/

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


অনুসন্ধান

নামাজের সময়সূচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৫:২৭ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:১৪ অপরাহ্ণ
  • ৪:০৩ অপরাহ্ণ
  • ৫:৪৩ অপরাহ্ণ
  • ৭:০০ অপরাহ্ণ
  • ৬:৪১ পূর্বাহ্ণ

অনলাইন জরিপ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপি এখন লিপসার্ভিসের দলে পরিণত হয়েছে।’ আপনিও কি তাই মনে করেন? Live

  • হ্যাঁ
    33% 3 / 9
  • না
    66% 6 / 9