সর্বশেষঃ
শুক্রবার দিল্লি সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নিচে তথ্যচিত্রে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর ইতিহাস তুলে ধরা হবে: মেয়র আতিক ভারী বৃষ্টিপাতে সুনামগঞ্জ বন্যায় ডুবছে যুক্তরাষ্ট্রে ৫ লাখ অবৈধ অভিবাসীকে বৈধতা দিচ্ছেন বাইডেন সরকারের ৩৮মন্ত্রণালয় ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ৫১৫ কোটি টাকার ভূমি কর বকেয়া সুপ্রিম কোর্ট মাজারে-অসহায়দের মধ্যে কোরবানির মাংস বিতরণ সৌদিতে আরো ৩ বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু, ফিরতি ফ্লাইট ২০ জুন শুরু টানা পাঁচদিন ছুটি শেষে ঢাকায় ফিরছে মানুষ কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাহাড়ধসে নিহত ৯ সোনাইমুড়ী প্রেসক্লাবে ঈদ পুনর্মিলনী
রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ০৭:২৬ পূর্বাহ্ন

ঢাকা দক্ষিণের মেয়র খোকনের  রাজনৈতিক পিএস-২ ও কর কর্মকর্তা শেখ কুদ্দুসকে দুদকে তলব

দূরবীণ নিউজ  প্রতিবেদক:
ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকনের  রাজনৈতিক একান্ত সচিব (পিএস-২) ও একটি অঞ্চলের কর কর্মকর্তা শেখ   কুদ্দুসসহ তিনজনকে তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

দুদকের অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে  ক্যাসিনো কাণ্ডে অবৈধ সম্পদ অর্জনের। আর ওই অভিযোগ অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে তাদেরকে তলব করেছে দুদক। গণমাধ্যমকে এ্ই তথ্য নিশ্চিত করেছেন দুদকের জনসংযোগ বিভাগ।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) দুদক পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন স্বাক্ষরিত পৃথক চিঠিতে তাদের তলব করা হয়। তলবি নোটিশে ডিএসসিসির মেয়রের রাজনৈতিক পিএস-২  শেখ  কুদ্দুসকে ২১ জানুয়ারি দুদক প্রধান কার্যালয়ে হাজির হতে বলা হয়েছে।

জাতীয় সংসদের হুইপ শামসুল হক চৌধুরীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা (পিএ) এজাজ চৌধুরীকে ২১ জানুয়ারি এবং যুবলীগের সাবেক সহসম্পাদক মুন্সিগঞ্জের জাকির হোসেনকে ২০ জানুয়ারি দুদকের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হতে বলা হয়েছে। জাতীয় সংসদের হুইপ শামসুল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধেও এ বিষয়ে অনুসন্ধান করছে দুদক।

নোটিশে বলা হয়, ঠিকাদার জি কে শামীমসহ অন্যান্য ব্যক্তির বিরুদ্ধে সরকারি কর্মকর্তাদের শত শত কোটি টাকা ঘুষ দিয়ে বড় বড় ঠিকাদারি কাজ বাগিয়ে নিয়ে বিভিন্ন অনিয়মের মাধ্যমে সরকারি অর্থ আত্মসাৎ, ক্যাসিনো ব্যবসা করে শত শত কোটি টাকা অবৈধ প্রক্রিয়ায় অর্জন করে বিদেশে পাচার ও জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে অনুসন্ধান চলছে। সুষ্ঠু অনুসন্ধানের জন্য বক্তব্য রেকর্ড করে পর্যালোচনা করা একান্ত প্রয়োজন।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান শুরু হলে প্রথম দিনই রাজধানীর ইয়াংমেনস ফকিরাপুল ক্লাবে অভিযান চালানো হয়। সেখান থেকে গ্রেপ্তার হন ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক (পরে বহিষ্কার করা হয়) খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া।

এরই ধারাবাহিকতায় বিভিন্ন অভিযানে একে একে গ্রেপ্তার হন কথিত যুবলীগ নেতা ও ঠিকাদার এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীম, মোহামেডান ক্লাবের ডাইরেক্টর ইনচার্জ মো. লোকমান হোসেন ভূঁইয়া, ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট, সম্রাটের সহযোগী এনামুল হক আরমান, জাকির হোসেন, কলাবাগান ক্রীড়াচক্রের সভাপতি মোহাম্মদ শফিকুল আলম (ফিরোজ), অনলাইন ক্যাসিনোর হোতা সেলিম প্রধান এবং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান (মিজান) ও তারেকুজ্জামান রাজীব।

গ্রেপ্তার হওয়া এসব ব্যক্তির বিরুদ্ধে অবৈধভাবে বিপুল অর্থের মালিক হওয়া, অর্থ পাচারসহ নানা অভিযোগ ওঠে। জিজ্ঞাসাবাদে তাদের অপকর্মে সহযোগী ও পৃষ্ঠপোষক হিসেবে সাংসদ, রাজনীতিক, সরকারি কর্মকর্তাসহ বিভিন্নজনের নাম উঠে আসে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তদন্তের পাশাপাশি তাদের অবৈধ সম্পদের খোঁজে মাঠে নামে দুদক।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর ক্যাসিনো-কাণ্ডে জড়িত ব্যক্তিদের সম্পদ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক। পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেনের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের অনুসন্ধান দল গঠন করা হয়। পরে আরও দুজনকে দলে যুক্ত করা হয়। দলের অন্য সদস্যরা হলেন উপপরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম, মো. সালাহউদ্দিন, সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী, সাইফুল ইসলাম, আতাউর রহমান ও মোহাম্মদ নেয়ামুল আহসান গাজী।

অনুসন্ধান দলের সদস্যরা গণমাধ্যমে আসা বিভিন্ন ব্যক্তির নাম যাচাই-বাছাই করে একটি প্রাথমিক তালিকা তৈরি করেন। সংস্থার গোয়েন্দা শাখার পক্ষ থেকে এসব তথ্য যাচাই-বাছাই করা হয়। পাশাপাশি র‍্যাব ও বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (বিএফআইইউ) প্রধানেরা দুদক চেয়ারম্যানের সঙ্গে বৈঠক করে গোয়েন্দা তথ্য সরবরাহ করেন।

সেসব তথ্য ও কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে এ পর্যন্ত ২০টি মামলা করে দুদক দল। এসব মামলা হয়েছে ঠিকাদার জি কে শামীম, বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া, আওয়ামী লীগ নেতা এনামুল হক ও তার ভাই রূপন ভূঁইয়া, অনলাইন ক্যাসিনোর হোতা সেলিম প্রধান, বিসিবি পরিচালক লোকমান হোসেন ভূঁইয়া, কলাবাগান ক্লাবের সভাপতি শফিকুল আলম ফিরোজ, এনআরবি ব্যাংকের সাবেক এমডি প্রশান্ত কুমার হালদার, যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক আনিসুর রহমান ও তার স্ত্রী সুমি রহমান, কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান মিজান, তারেকুজ্জামান রাজীব ও এ কে এম মমিনুল হক সাঈদ, যুবলীগের সাবেক প্রভাবশালী নেতা ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট, এনামুল হক আরমান, জাকির হোসেন ও তার স্ত্রী আয়েশা আক্তার সুমা এবং গণপূর্তের সিনিয়র সহকারী শাখাপ্রধান মুমিতুর রহমান ও তার স্ত্রী জেসমিন আক্তারের বিরুদ্ধে।# 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


অনুসন্ধান

নামাজের সময়সূচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৪৬ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০৩ অপরাহ্ণ
  • ৪:৪০ অপরাহ্ণ
  • ৬:৫২ অপরাহ্ণ
  • ৮:১৮ অপরাহ্ণ
  • ৫:১১ পূর্বাহ্ণ

অনলাইন জরিপ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপি এখন লিপসার্ভিসের দলে পরিণত হয়েছে।’ আপনিও কি তাই মনে করেন? Live

  • হ্যাঁ
    25% 3 / 12
  • না
    75% 9 / 12