সর্বশেষঃ
বৃষ্টিতে রাজধানীতে জলাবদ্ধতা, নগরবাসীর দুভোগ বেড়েছে ঘূর্ণিঝড়ে ৩৫ হাজার ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত, প্রাণহানি-১০ ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে, আরিচা-কাজিরহাট ও পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরিসহ নৌযান চলাচল বন্ধ ডিএনসিসির কাউন্সিলর কাশেমকে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ পটুয়াখালীতে  ঘূর্ণিঝড়ের তান্ডবে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে দক্ষিণালীয় এলাকার বাড়ি ঘর পানির নিচে ঝড়বৃষ্টিতে মেট্রোরেল চলাচলে সকাল থেকে বিঘ্ন। ঘূর্ণিঝড় রিমাল সারাদেশে বৃষ্টিসহ ঝড় বইছে ২৫ মে বঙ্গবাজার বিপনী বিতান নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলী ও ঠিকাদারের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন

কাস্টমসের ৫৫ কেজি সোনা চুরির রহস্য বের হচ্ছে তদন্তে

দূরবীণ নিউজ প্রতিনিধি:
অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে ধাপে ধাপে শর্তকতার সাথে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাস্টম হাউজের গুদামের লকার থেকে ৫৫ কেজি ৫১ গ্রাম সোনা সরানো হয়েছে। আর এ ঘটনায় শিগগিরই জড়িতদের গ্রেফতারের ঘোষণা দিচ্ছেন পুলিশের তদন্ত কর্মকর্তারা। সন্দেহভাজন অপরাধীদেরকে কঠোর নজরদারিতে রাখা হয়েছে।
পুলিশ কর্মকর্তারা অনেকটাই নিশ্চিত হয়েছেন,বিমানবন্ধরে স্পর্শ কাতর এলাকায় কাস্টম হাউজের গুদামের লকার থেকে প্রায় ৪৫ কোটি টাকা মূল্যের সোনা চুরির ঘটনাটি চাপা দেওয়ার জন্য নতুন নাকট সাজিয়েছেন কাস্টম হাউজের গুদাম রক্ষায় দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তারা। আর একদিনে লকার থেকে সোনা সরানো হয়নি। অথচ সোনা চুরির ঘটনায় দায়ের করা সাজানো মালার অভিযোগে বিবরণীতে মিথ্যা তথ্য উল্লেখ্য করা হয়েছে। মামলায় বলা হয়েছে, গত ১ সেপ্টেম্বর শনিবার দিবাগত রাত সোয়া ১২ টা থেকে পরদিন ২ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ৮টার মধ্যে কে বা কারা গুদামের আলমারি লকার ভেঙে সোনাগুলো নিয়ে যান।

গণমাধ্যমকে পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানান, পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদেই গোডাউনের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ৮ জনের বক্তব্যেই বেরিয়ে আসছে অনেক তথ্য। গোডাউনের লকার পাহারায় এ, বি, সি ও ডি শিফটের ৪ সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মাসুম রানা, সাইদুল ইসলাম শাহেদ, শহিদুল ইসলাম ও আকরাম শেখ এবং ৪ সিপাহী রেজাউল করিম, মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক, আফজাল হোসেন ও নিয়ামত হাওলাদার জিজ্ঞাসাবাদকালে সেনা চুরির সাথে জড়িতদের নাম বেরিয়ে আসছে। জড়িত দুই সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা এবং এক সিপাহিকে যে কোন সময় গ্রেফতার দেখানো হতে পারে।

মামলায় এক রাতে সোনা চুরির কথা বলা হলেও আসলে পর্যায়ক্রমে কয়েক মাস ধরে সরানো হয়েছে কমপক্ষে ৫৫ কেজি সোনা। পরিকল্পিতভাবেই সোনা রাখার গুদামে বসানো হয়নি সিসিটিভি। গুদামের গেটে সিসি ক্যামেরা ৪ মাস আগে নষ্ট হলেও নতুন লাগানো বা মেরামত করা হয়নি। তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, কাস্টম হাউজের নিজস্ব গুদামে সাধারণ কোনও ব্যক্তির প্রবেশ করার সুযোগ নেই। চা ল্যকর এ চুরির ঘটনার পর প্রকৃত অপরাধী আড়ালের চেষ্টা করা হয়েছে। ধামাচাপা দিতে না পেরে নতুন করে ইনভেন্ট্রি শুরু করে হাউস কর্তৃপক্ষ। তখনই বেরিয়ে আসে লকারে থাকা ৫৫ কেজি সোনা গায়েবের তথ্য। আসলে দীর্ঘ সময় ধরে প্রায় ৪৫ কোটি টাকা সমমূল্যের সোনা সরানোর পর অডিটে যাতে ফেঁসে না যান সেজন্য কাস্টমস কর্মকর্তাদের যোগসাজশেই সাজানো হয়েছে চুরি নাটক। করা হয় মামলা।

পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলেন, মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, গায়েব হওয়া সোনা ২০২০ থেকে ২০২৩ সালে আসা। অথচ মামলার এজাহার এবং ডিএম অনুযায়ী গায়েব হওয়া সোনাগুলো গুদামে এসেছিল চলতি ২০২৩ সালের জানুয়ারি থেকে ১৫ আগস্টের মধ্যে। হেফাজতে থাকা সিপাহিসহ আট কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্যে এটা স্পষ্ট যে, বিমানবন্দরে কাস্টমসের গুদামে সুরক্ষিত লকার থেকে ৫৫ কেজি স্বর্ণ লুটে জড়িত কাস্টমসেরই কর্মকর্তা-কর্মচারীদের একটি চক্র।

মামলার নথি ও কাস্টমস কর্মকর্তাদের বক্তব্যে উঠে আসে, সোনা চুরির এই ঘটনা ঢাকা শুল্ক বিভাগের নজরে আসে গত শনিবার। তবে বিষয়টি জানাজানি হয় ৩ সেপ্টেম্বর। বিমানবন্দরের কাস্টম হাউসের নিজস্ব গুদামে দিনভর ইনভেন্টরি শেষে ৫৫ কেজি সোনা চুরি বা বেহাত হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত হয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। পুরো ঘটনা তদন্তের জন্য কাস্টমসের যুগ্ম-কমিশনার মিনহাজ উদ্দীনের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি টিম গঠন করে কাস্টম হাউজ।
সোনা চুরি এ মামলাটির ছায়া তদন্ত করছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ ও এলিট ফোর্স র‌্যাবের গোয়েন্দা শাখা। সোনা উধাওয়ের ঘটনায় প্রশ্নে উঠেছে কাস্টমস গুদামের নিরাপত্তা ব্যবস্থা এবং আটকের রসিদ (ডিএম) মোতাবেক ২০২০ থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে জব্দ করা ৫৫ কেজি ৫১ গ্রাম সোনা বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা না দেওয়া নিয়েও।

ডিএমপি’র বিমানবন্দর জোনের এডিসি তৌহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা আটজনকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছি। ইতোমধ্যে চার সিপাহিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনের কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলেছে। বাকি চার সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তার মধ্যে দুজনের কাছ থেকে চুরি সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলেছে। সন্দেহভাজনদের তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় যোগাযোগ ও পরিকল্পনা সম্পর্কে জানার চেষ্টা করছি।

জিজ্ঞাসাবাদের সময় উপস্থিত থাকা পুলিশের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, সোনা চুরির বিষয়ে আটকদের বক্তব্যে ব্যাপক গরমিল দেখা গেছে। গুদামের ভেতরে সিসিটিভির নিয়ন্ত্রণ না থাকা ও বাইরের সিসি ক্যামেরা নষ্ট থাকায় সোনা চুরির সম্ভাব্য সময়ে তাদের গতিবিধিও নিশ্চিত নয়। এক্ষেত্রে প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে ও জিজ্ঞাসাবাদে তিনজনের বক্তব্যে গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য উঠে এসেছে। সেগুলো যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।
এদিকে কাস্টমসের গুদামের ব্যবস্থাপনার বিষয়ে এনবিআর’র স্থায়ী আদেশে বলা হয়েছে, সংশ্লিষ্ট কাস্টম হাউসের কমিশনার গুদামে একজন নিরীক্ষণ কর্মকর্তা নিয়োগ করবেন। সেই কর্মকর্তা প্রতি মাসের প্রথম সপ্তাহে গুদাম পরিদর্শন করে কমিশনারের কাছে প্রতিবেদন পাঠাবেন। কমিশনার সার্বিক প্রতিবেদন ছয় মাস পরপর এনবিআরের পাঠাবেন। গুদামের চাবি ও লক-এন্ট্রি মনিটরিং করবেন তত্ত¡াবধানকারী কর্মকর্তা। কমিশনার কর্তৃক নিয়োগ করা পোশাকধারী দেহ তল্লাশি কর্মকর্তা গুদামে প্রবেশে প্রত্যেকের দেহ তল্লাশি করবেন। চার শিফটে ২৪ ঘণ্টা দায়িত্ব পালন করবেন তল্লাশি কর্মকর্তারা। তবে বিমানবন্দর কাস্টমসের গুদামে এ ধরনের কোনো নিয়মই মানা হয়নি বলে অভিযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করা হলে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি কমিশনার একেএম নুরুল হুদা আজাদ।
র‌্যাব সদর দপ্তরের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইং পরিচালক লে. কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, নিরাপত্তাবেষ্টিত এলাকা বিমানবন্দরের কাস্টমসের গুদাম থেকে ৫৫ কেজি সোনা চুরির ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে। পুলিশও কাজ করছে। র‌্যাবও গুরুত্বের সঙ্গে ছায়া তদন্ত করছে। এখন পর্যন্ত বেশ কিছু আমলযোগ্য তথ্য মিলেছে। # কাশেম


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


অনুসন্ধান

নামাজের সময়সূচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৪৬ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০১ অপরাহ্ণ
  • ৪:৩৭ অপরাহ্ণ
  • ৬:৪৯ অপরাহ্ণ
  • ৮:১৫ অপরাহ্ণ
  • ৫:১০ পূর্বাহ্ণ

অনলাইন জরিপ

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপি এখন লিপসার্ভিসের দলে পরিণত হয়েছে।’ আপনিও কি তাই মনে করেন? Live

  • হ্যাঁ
    25% 3 / 12
  • না
    75% 9 / 12