শিরোনাম :
সাংবাদিক রকিবুলের মায়ের মৃত্যুতে ডিআরইউ’র শোক করোনায় সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ারের মৃত্যুতে ডিআরইউ’র শোক করোনায় পরিবেশ অধিদপ্তরের ডিজি রফিকের মৃত্যুতে তথ্যমন্ত্রীর শোক বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় খুনিদের স্থান নেই : প্রধান বিচারপতি খাদ্য সচিব নাজমানারা করোনায় আক্রান্ত মুন্সিগঞ্জে বিস্ফোরণে পৌর মেয়রের স্ত্রীর মৃত্যু তিন সৈন্যের শিরোশ্ছেদ সৌদিতে ১৯ বিক্ষোভকারীকে মৃত্যুদণ্ড দিল মিয়ানমার আদালত করোনায় একদিনে ৭৭ জনের মৃত্যু,নতুন শনাক্ত ৫,৩৪৩ জন অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টা করলে কঠোর ব্যবস্থা নিবেন: আইনমন্ত্রী ১৫ এপ্রিল বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু দুর্নীতিবাজরা দুদক আতঙ্কে, আর দুদক করোনা আতঙ্কে, পরিচালকসহ আক্রান্ত-২৩ টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিলেন ডিএনসিসির সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র জামাল মোস্তফা করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন সাঈদ খোকন ৩০ মে, ‘শিশুবক্তা’ রফিকুলের মতিঝিল থানার মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ব্রিটেনের প্রিন্স ফিলিপ আর নেই একদিনে দেশে করোনায় আরো ৬৩ জনের মৃত্যু,নতুন শনাক্ত ৭,৪৬২ রোহিঙ্গাদের দায়িত্ব শুধু বাংলাদেশের নয়: জন কেরি করোনায় এপর্যন্ত ১,৪৩২ আনসার আক্রান্ত
রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৮:০৬ পূর্বাহ্ন

করোনা প্রতিরোধে কর্মরতদের উজ্জীবিত করি মানুষের পাশে দাঁড়াই : এম এ মতিন

দিদারুল আলম দিদার , দূরবীণ নিউজ :
ডিএলএম গ্রুপের চেয়ায়ম্যান এম এ মতিন এমবিএ বলেছেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের (কোভিড-১) সংক্রমণ এখন বাংলাদেশকেও মোকাবেলা করতে হচ্ছে । এর ব্যাপক বিস্তার প্রতিরোধে চিকিৎসকসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার যারা জীবনের ঝুঁকি নিয়েও ভূমিকা রাখছেন তাদের সাহস ও উজ্জীবিত করা সকলেরই দায়িত্ব।

এম এ মতিন এমবিএ একজন সফল ব্যবসায়ীর পাশাপাশি একজন সমাজকর্মী ও সংগঠক। তিনি বুড়িচং উপজেলা সমিতি, ঢাকার সভাপতি এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গেও সম্পৃক্ত।

তিনি জানান, বুড়িচং উপজেলা সমিতির পক্ষ থেকে করোনাভাইরাস জনিত সংক্রমণ প্রতিরোধে বিভিন্ন সচেতনতামূলক প্রচারপত্র, চিকিৎসা সহায়তায় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের দিয়ে একটি টিমগঠন করে সহায়তা সেল এবং অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

মতিন বলেন, এ মহামারি জনিত উদ্ভূত পরিস্থিতিতে চির চেনা বিশ্ব চরিত্র এখন আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। বিশ্বের উন্নত ও অনুন্নত সকল দেশই এ মহামারির কবলে। আক্রান্ত ও মৃত্যু লাখ ছাড়িয়ে তা প্রতিদিন শুধু জ্যামিতিক হারে বাড়ছেই। পৃথিবী বলতে গেলে বন্ধ হয়ে গেছে। যেসব জায়গা মানুষের পদচারণায় মুখর থাকে, সেগুলো দেখলে এখন ভূতুড়ে মনে হয়।

দেশে দেশে প্রতিদিনের চলাচলের উপর নিষেধাজ্ঞা, স্কুল বন্ধ, ভ্রমণের উপর নিষেধাজ্ঞা, গণ-জমায়েতের উপর বিধিনিষেধ -এসব কারণে এ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। একটি রোগে ঠেকানোর ক্ষেত্রে পুরো বিশ্ব যেভাবে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে, সেটি নজিরবিহীন। কিন্তু এর শেষ কোথায়? মানুষ কবে নাগাদ তাদের স্বাভাবিক দৈনন্দিন জীবনে ফিরতে পারবে? এর জবাব কারোরই এখন জানা নেই !

এম এ মতিন বলেন, এ মহামারি ঠেকাতে আমাদের রাষ্ট্র ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী মানুষকে ঘরে থাকাসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হচ্ছে। এতে করে নিন্ম আয়ের মানুষসহ বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ খাদ্যসহ নানা সংকটের মূখোমূখি। এ সংকট মোকাবেলায় সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। পাশাপাশি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, সংগঠন ও ব্যক্তিগন এগিয়ে এসেছেন।

তিনি বলেন, এ ক্রান্তিকালে আমাদের যাঁর যাঁর অবস্থান থেকে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো এখন সময়ের দাবী। তিনি বলেন, এ ক্রান্তিকালেও দেশে কিছু মানুষ বিভিন্ন অপতৎপরতায় লিপ্ত। যা দূর্ভাগ্যজনক। সরকার এ অপতৎপরতা নির্মূলে কঠোর নির্দেশনা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে বিশ্ব ব্যাপক দুর্ভিক্ষের ঝুঁকির মুখে আছে বলে সতর্ক করেছে জাতিসংঘ।
করোনাভাইরাস জনিত মহামারির কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক সংকট বিশ্বজুড়ে তীব্র খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় ভোগা মানুষের সংখ্যা বর্তমানের তুলনায় দ্বিগুণ করতে পারে।

এ মহামারীর কারণে পর্যটন থেকে আয় বন্ধ হয়ে যাওয়া, রেমিটেন্সে ধস, ভ্রমণ এবং অন্যান্য অর্থনৈতিক কার্যক্রমে নানামাত্রিক নিষেধাজ্ঞার ফলে সৃষ্ট অভিঘাত ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকট সৃষ্টি করবে।

মতিন বলেন, আমাদের দেশে প্রতিদিনই করোনাভাইরাস জনিত সংক্রমণ সংখ্যা বাড়ছে। চিকিৎসকসহ মৃত্যু ছাড়িয়েছে শতাধিক এবং চিকিৎসক নার্সসহ বিভিন্ন পর্যায়ে আক্রান্ত কয়েক হাজার। তাই এ পরিস্থিতি মোকাবেলায় দল মত নির্বিশেষে দেশ ও মানুষের পাশে দাঁড়ানো সকলের দায়িত্ব।

করোনাভাইরাস যেন কমিউনিটি ট্রান্সমিশন তথা সমাজে ব্যপক বিস্তার না ঘটে রাষ্ট্র ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী মানুষকে চলতে হবেই। নইলে এর ভয়াবহতার ট্রাজেডি আমাদের দেখতে হবে। তাই দেশ ও মানুষ রক্ষায় এগিয়ে আসতে হবে মানুষকেই। # কাশেম


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অনুসন্ধান

করোনা আপডেট

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
৬৭৮,৯৩৭
সুস্থ
৫৭২,৩৭৮
মৃত্যু
৯,৬৬১
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
১৩২,৯২৪,৮৭৩
সুস্থ
৭৫,৬৪৮,৪৩৭
মৃত্যু
২,৮৮৫,০৮২

.